লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প বেশিরভাগ মহিলাই টাকা পাবেন না- কারন বিস্তারিত জেনে নিন

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প 

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নতুন প্রকল্প ‘লক্ষ্মীর ভান্ডার'মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী এই প্রকল্পের সূচনা করেন । এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য হল পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি পরিবারের প্রাপ্ত বয়স্ক মহিলা সদস্যদের জন্য ন্যূনতম মাসিক আর্থিক সহায়তা প্রদান করা । 

কারা এই ‘লক্ষ্মীর ভান্ডার' প্রকল্পের সুবিধা পাবেন ?

২৫ থেকে ৬০ বছর বয়সী মহিলারা এই সুযােগ পাবেন। সাধারণ আর ও.বি.সি. সম্প্রদায়ের প্রার্থীরা মাসে ৫০০ টাকা | আর তপশিলী জাতি [S.C ]  ও তপশিলী উপজাতি [S.T]  সম্প্রদায়ের প্রার্থীরা মাসে ১,০০০ টাকা করে পাবেন। কোনাে সরকারি, সরকারি নিয়ন্ত্রণাধীন সংস্থা, বিধিবদ্ধ সংস্থা, পঞ্চায়েত, পৌরনিগম, পৌরসভা, স্থানীয় স্বশাসিত সংস্থা, সরকার পােষিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রভৃতি সংস্থাতে নিয়মিত কোনাে চাকরি থেকে মাসিক উপার্জন করে থাকলে যােগ্য নন। 

‘লক্ষ্মীর ভান্ডার' প্রকল্পের দরখাস্তের ফর্ম পূরণের সঙ্গে কি কি প্রমাণপত্র সঙ্গে থাকতে হবে ?

এই প্রমাণপত্র গুলি লাগবে :
(১) পাশপোের্ট মাপের রঙিন ফটো (দরখাস্তের ওপরের ডানদিকে নির্দিষ্ট জায়গায় সেঁটে), (২) স্বাস্থ্যসাথীকার্ডের স্ব-প্রত্যয়িত [ নিজে সই করে দিতে হবে ] জেরক্স কপি, 
(৩) আধার কার্ডের স্ব-প্রত্যয়িত জেরক্স
(৪) তপশিলী জাতি বা, তপশিলী উপজাতি সম্প্রদায়ের প্রার্থীদের বেলায় কাস্ট সার্টিফিকেটের স্ব-প্রত্যয়িত জেরক্স, 
(৫) ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট নম্বর (ব্যাঙ্কের ঠিকানা, আই.এফ.এস.সি. কোড, এম,আই.সি.আর, কোড সহ), 
(৬) রেশন কার্ডের স্ব-প্রত্যয়িত নকল, 
(৭) বাসিন্দা সাটিফিকেটের স্ব প্রত্যয়িত নকল, [ পঞ্চায়েত বা পোউরসভা থেকে তুলতে হবে]
(৮) বৈধ মােবাইল নম্বর ও ই-মেল আই.ডি, (যদি থাকে)।

‘লক্ষ্মীর ভান্ডার' প্রকল্পের প্রয়ােজনীয় নির্দেশাবলী 

(১) প্রার্থীকে পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে।
(২) স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকা বাধ্যতামূলক। যাঁদের স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নেই, তারা আধার কার্ড দিয়ে দরখাস্ত করে এনরােলমেন্ট করে রাখতে পারেন। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড পেলে তবেই টাকা পাবেন।
(৩) একই পরিবারে একাধিক মহিলা থাকলে, যার স্বাস্থ্যসাথী কার্ড | আছে, শুধুমাত্র তিনিই পাবেন। একাধিক মহিলা পাবেন না।
(৪) সরকার বা, সরকার পােষিত সংস্থায় যাঁরা চাকরি করেন তারা যােগ্য নন। 
(৫) পেনশন প্রাপ্ত মহিলারাও যােগ্য নন।
(৬) ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে আধার লিঙ্ক থাকতে হবে।
(৭) যিনি আবেদন করবেন, তার নামেই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। অন্য কারাে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট কিংবা জয়েন্ট ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থাকলে যোগ্য নন।
(৮) সরকারি বা বেসরকারি যে কোনাে ব্যাঙ্কে অ্যাকাউন্ট থাকলেই হবে।
(৯) ইনকাম ট্যাক্স দেন এমন মহিলারা যােগ্য নন
(১০) লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের ফর্ম ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলােড করে নিলে হবে না। এই ফর্ম সরাসরি দুয়াবে সরকার ক্যাম্প থেকেই সংগ্রহ করতে হবে


কোন মহিলারা ‘লক্ষ্মীর ভান্ডার' প্রকল্পে টাকা পাবেন না ? 


১। বয়স ২৫ এর নিচে বা ৬০ এর উপরে হলে তিনি লক্ষ্মী ভান্ডার প্রকল্পে টাকা পাবেন না । 

২। কোনো মহিলার নামে ব্যাবসার কারনে আই টি ফাইল করা থাকলে তিনি লক্ষ্মী ভান্ডার প্রকল্পে টাকা পাবেন না ।

৩। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না থাকলে আপনি আধার কার্ড দিয়ে আপ্লাই করবেন কিন্ত স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না পাওয়া পর্যন্ত টাকা পাবেন না । 

৪। একই পরিবারের একাধিক মহিলা থাকলে মাত্র ১ জন অর্থাৎ যার নামে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড  আছে তিনিই পাবেন বাকিরা পাবেন না 

এই শর্তগুলি ঠিক ঠাক পালন না হলে অনেক মহিলাই এই প্রকল্পের কোনো টাকাই পাবেন না । কাজেই সব দিক দেখে নিয়ে তবেই ফর্ম ফিলাপ করবেন । 
লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প বেশিরভাগ মহিলাই টাকা পাবেন না- কারন বিস্তারিত জেনে নিন লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প বেশিরভাগ মহিলাই টাকা পাবেন না- কারন বিস্তারিত জেনে নিন Reviewed by WisdomApps on August 21, 2021 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.